বিশ্ব মা দিবসে এক সংগ্রামী মায়ের গল্প

May 16, 2018

সিংড়ার একজন সংগ্রামী মা খোদেজা
২৫ বছর ধরে তরকারীর ব্যবসা করে সংসার চালায়

মোঃ আবু জাফর সিদ্দিকী, নাটোরঃ
নাম খোদেজা, বয়স আনুমানিক ৪৫ থেকে ৪৮ বছর হবে। প্রতিদিন তাকে দেখা যায় নাটোরের সিংড়া পৌর শহরের হাট-বাজারে। পেশায় একজন কাঁচা তরকারী ব্যবসায়ী হলেও তিনি একজন সংগ্রামী মা। তার বাড়ি পৌর শহরের ২নং ওয়ার্ডের উত্তর দমদমা গ্রামে।

উত্তর দমদমা গ্রামের আঃ খালেকের মেয়ে খোদেজা। প্রায় ২৮ থেকে ৩০ বছর আগে বিয়ে হয় একই গ্রামের ইউসুফ মোল্লার সাথে। খোরশেদ আলম নামের এক ছেলে সন্তান জন্ম নেয়ার পরে তাদের সংসার ভেঙ্গে যায়। তারপর থেকেই জীবন যুদ্ধে সংগ্রাম করে বেঁচে আছেন খোদেজা। প্রায় ২৫ বছর যাবৎ সিংড়ার হাট-বাজারে কাঁচা তরকারীর ব্যবসা করে সংসার চালাচ্ছেন তিনি। ছেলেকে ছোট থেকে বড় করে বিয়েও দিয়েছেন। জীবিকার তাগিদে ছেলে এখন স্ত্রীকে নিয়ে থাকেন ঢাকায়। ছেলের দুই সন্তান নিয়েই এখন সংসার খোদেজার। সংসার চালানোর জন্য প্রতি মাসে কিছু টাকা পাঠায় ছেলে খোরশেদ আলম। নিয়মিত খোঁজ-খবর নেন ছেলে। গ্রামীণ ব্যাংক থেকে টাকা লোন নিয়ে ব্যবসা শুরু করেন খোদেজা। প্রতি সপ্তাহে ৬১০ টাকা কিস্তি পরিশোধ করতে হয় তাকে। বছরে দু’ এক দিন বাদে প্রতিদিনই দোকানদারি করেন এই সংগ্রামী মা। টিনের ঘরে থাকেন এই হতদরিদ্র খোদেজা।

সংগ্রামী মা খোদেজা বলেন, প্রতিদিন ১০০-১৫০ টাকা লাভ হয় ব্যবসা করে। এতেই চলে তার সংসার। সাবেক প্যানেল মেয়র গোলাম আজম বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দিয়েছে। সেটা থেকে ৩-৪ মাস পর পর ১৫০০ টাকা পাই। সাবেক প্যানেল মেয়র আদনান মাহমুদ বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছে। সিংড়া পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিজানুর রহমানও সবসময় আমাকে সহযোগিতা করে।